রাত ৯:০৮ | শনিবার | ২১শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং | ৮ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রাণ আপ

pran-up-add

গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হোক

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন আগামী ১৫ মে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের বছর এটা। তাই ভয় বাড়ছে। চুন খেয়ে মুখ পোড়া মানুষ আমরা, তাই মিষ্টি দই দেখলেও ভয় পাই।

বিগত নির্বাচনগুলো একতরফা হলেও এবার মনে হচ্ছে তা হবে না। যে কোনো মূল্যে বিএনপি নির্বাচনে যাবে এমন আভাসই পাওয়া যাচ্ছে।

৩১ মার্চ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিএনপি খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।’ বড় রাজনৈতিক দু’দল নির্বাচনে গেলে যা হয় তা-ই হয়তো হবে।

আবহাওয়াটা ফের গুমট ঠেকছে। বোধকরি আলোর দেখা মিলবে না। রাজনৈতিক যুদ্ধ আবারও হবে। আবারও অশান্তির ভয়।

বিরোধী দলের পক্ষ থেকে ঘোষণা আসছে নির্বাচনে তারা যাবেই। হুঙ্কার দেয়া হচ্ছে রাজপথ দখলের। তাদের কথায় বোঝা যাচ্ছে সেই যুদ্ধ আবারও শুরু হবে। এতে অশান্তি বাড়বে।

অর্থনীতি ধ্বংস হবে। দেশে বেকার বাড়বে, ব্যবসা-বাণিজ্যে অচলাবস্থা দেখা দেবে। সাধারণ মান–ষের জীবন-জীবিকা অনিশ্চিত হবে।

এমনটা আমরা আর চাই না। তবে এটাও সত্য, বিরোধী দলের রাজনীতি করার পরিবেশ দিতে হবে সরকারকে। সে পরিবেশ পাচ্ছে না তারা। দেশের স্বার্থে সরকারকে ছাড় দিতে হবে। তবেই দেশে শান্তি বিরাজ করবে। তবে বিরোধী দলকে মনে রাখতে হবে, কোনোভাবেই দেশের জানমাল নষ্ট হয় এমন কর্মসূচি তাদের দেয়া ঠিক হবে না।

জ্বালাও-পোড়াওয়ের রাজনীতি বিএনপিকে অনেকটাই পিছিয়ে দিয়েছে। তারা ভোটের রাজনীতিতে পিছিয়ে না গেলেও জ্বালাও-পোড়াওয়ের কারণে নানাভাবে অনেক পেছনে পড়েছে এবং এর খেসারতও তাদের দিতে হচ্ছে। বিরোধী দলগুলো সহনশীল হবে, সেই সঙ্গে সরকারি দলও সব ক্ষেত্রে সদয় হবে এমন প্রত্যাশা আমরা করছি।

নির্বাচন নিয়ে দেশের মানুষের আগ্রহ-উদ্দীপনায় কোনো ঘাটতি নেই। মানুষ ভোট দিতে যে কতটা উদগ্রীব, তা মোটামুটিভাবে গ্রহণযোগ্য নির্বাচনগুলোর ভোটের হার দেখে বোঝা যায়।

নির্বাচনের সততা বা ভোটের পবিত্রতা রক্ষার বিষয়টি তাই রাজনৈতিকভাবে খুবই স্পর্শকাতর। সেজন্যই এ দেশে ‘আমার ভোট আমি দেব যাকে খুশি তাকে দেব’ স্লোগান দিয়ে যেমন আন্দোলন হয়েছে, তেমনি ভুয়া ভোটারের মাধ্যমে ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার ষড়যন্ত্রও ব্যর্থ হয়েছে এবং যুক্ত হয়েছে ছবিযুক্ত ভোটার তালিকা।

কিন্তু গণতন্ত্রের কয়েক যুগ পরও আমরা একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনী ব্যবস্থা গড়ে তুলতে পারিনি। সন্দেহ নেই, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন বলতে আমরা প্রকৃত নির্বাচনই বুঝে থাকি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে বিতর্কের অবসান ঘটাতে হবে।

তারা নিরপেক্ষ না হলে আমরা কীভাবে প্রকৃত নির্বাচন আশা করব? নির্বাচন কমিশনকে ঘিরে বিতর্ক নিরসন না হওয়ার দায় কার? নির্বাচন কমিশনই পারে জনসাধারণের মনে আশার আলো জ্বালাতে। তা না হলে নির্বাচন ও গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ আবারও সংকটে নিপতিত হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যাবে।

আমরা গঠনমূলক রাজনীতি চাই। ব্যক্তি স্বাধীনতা চাই। ধ্বংসাত্মক রাজনীতির পরিবর্তন চাই। সরকারি দলের উচিত হবে বিরোধী দলের দাবিগুলোর প্রতি সম্মান জানানো।

আবার বিরোধী দলেরও উচিত হবে সরকারকে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন করার সুযোগ দেয়া এবং দেশ পরিচালনায় সহায়তা করা।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» জামায়াত-জাতীয় পার্টির ঘাঁটিতে ‘সিঁধ’ কাটছে আ’লীগ

» সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে এমসিকিউ পরীক্ষার নির্দেশিকা

» প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা প্রথম দফা ২০ এপ্রিল

» এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল ৬ মে

» প্রযোজক প্রেরণার বিরুদ্ধে জন আব্রাহামের মামলা

» নারী শিক্ষার্থীরা কোটা চায় না: প্রধানমন্ত্রী

» জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন দিয়ে কোটা বাতিল করতে পারবে

» পুলিশকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান আন্দোলনকারীরা

» সিলেট শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট হ্যাকড

» প্রধানমন্ত্রীকে ঘোষণা দেয়ার আহ্বান, অন্য কারও কথায় আন্দোলন বন্ধ নয়

» কোনো কোটা থাকবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী, শতভাগ নিয়োগ হবে মেধায়

» ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’ মহাকাশে উড়বে ৪ মে

» কোটা সংস্কারে সরকারকে অনুরোধ জানানো হয়েছে || উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান

» কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ম্লান হয়|| মনিরুল ইসলাম (রয়েল)

» বাংলাদেশে মোটরসাইকেল রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া

Biggapon

Biggapon

সদস্য মণ্ডলীঃ-

সম্পাদকঃ এ, বি মালেক (স্বপ্নিল)
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ লতিফুল ইসলাম
উপদেষ্টাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন
আইটি উপদেষ্টাঃ মাহির শাহরিয়ার শিশির
আইটি সম্পাদকঃ আসাদ্দুজামান সাগর
প্রকাশক ও নির্বাহী পরিচালক (CEO):
ইঞ্জিনিয়ার এম, এ, মালেক (জীবন)

যোগাযোগঃ-

৮৬৮ কাজীপাড়া, মিরপুর-১০, মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ-১২১৬।
ইমেইলঃ info@dailynewsbd24.com, dailynewsbd247@gmail.com,
ওয়েবঃ www.dailynewsbd24.com
মোবাইলঃ +৮৮-০১৯৯৩৩৩৯৯৯৪-৯৯৬,
+৮৮-০১৭২১৫৬৭৭৮৯

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited

,

গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হোক

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন আগামী ১৫ মে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের বছর এটা। তাই ভয় বাড়ছে। চুন খেয়ে মুখ পোড়া মানুষ আমরা, তাই মিষ্টি দই দেখলেও ভয় পাই।

বিগত নির্বাচনগুলো একতরফা হলেও এবার মনে হচ্ছে তা হবে না। যে কোনো মূল্যে বিএনপি নির্বাচনে যাবে এমন আভাসই পাওয়া যাচ্ছে।

৩১ মার্চ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিএনপি খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।’ বড় রাজনৈতিক দু’দল নির্বাচনে গেলে যা হয় তা-ই হয়তো হবে।

আবহাওয়াটা ফের গুমট ঠেকছে। বোধকরি আলোর দেখা মিলবে না। রাজনৈতিক যুদ্ধ আবারও হবে। আবারও অশান্তির ভয়।

বিরোধী দলের পক্ষ থেকে ঘোষণা আসছে নির্বাচনে তারা যাবেই। হুঙ্কার দেয়া হচ্ছে রাজপথ দখলের। তাদের কথায় বোঝা যাচ্ছে সেই যুদ্ধ আবারও শুরু হবে। এতে অশান্তি বাড়বে।

অর্থনীতি ধ্বংস হবে। দেশে বেকার বাড়বে, ব্যবসা-বাণিজ্যে অচলাবস্থা দেখা দেবে। সাধারণ মান–ষের জীবন-জীবিকা অনিশ্চিত হবে।

এমনটা আমরা আর চাই না। তবে এটাও সত্য, বিরোধী দলের রাজনীতি করার পরিবেশ দিতে হবে সরকারকে। সে পরিবেশ পাচ্ছে না তারা। দেশের স্বার্থে সরকারকে ছাড় দিতে হবে। তবেই দেশে শান্তি বিরাজ করবে। তবে বিরোধী দলকে মনে রাখতে হবে, কোনোভাবেই দেশের জানমাল নষ্ট হয় এমন কর্মসূচি তাদের দেয়া ঠিক হবে না।

জ্বালাও-পোড়াওয়ের রাজনীতি বিএনপিকে অনেকটাই পিছিয়ে দিয়েছে। তারা ভোটের রাজনীতিতে পিছিয়ে না গেলেও জ্বালাও-পোড়াওয়ের কারণে নানাভাবে অনেক পেছনে পড়েছে এবং এর খেসারতও তাদের দিতে হচ্ছে। বিরোধী দলগুলো সহনশীল হবে, সেই সঙ্গে সরকারি দলও সব ক্ষেত্রে সদয় হবে এমন প্রত্যাশা আমরা করছি।

নির্বাচন নিয়ে দেশের মানুষের আগ্রহ-উদ্দীপনায় কোনো ঘাটতি নেই। মানুষ ভোট দিতে যে কতটা উদগ্রীব, তা মোটামুটিভাবে গ্রহণযোগ্য নির্বাচনগুলোর ভোটের হার দেখে বোঝা যায়।

নির্বাচনের সততা বা ভোটের পবিত্রতা রক্ষার বিষয়টি তাই রাজনৈতিকভাবে খুবই স্পর্শকাতর। সেজন্যই এ দেশে ‘আমার ভোট আমি দেব যাকে খুশি তাকে দেব’ স্লোগান দিয়ে যেমন আন্দোলন হয়েছে, তেমনি ভুয়া ভোটারের মাধ্যমে ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার ষড়যন্ত্রও ব্যর্থ হয়েছে এবং যুক্ত হয়েছে ছবিযুক্ত ভোটার তালিকা।

কিন্তু গণতন্ত্রের কয়েক যুগ পরও আমরা একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনী ব্যবস্থা গড়ে তুলতে পারিনি। সন্দেহ নেই, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন বলতে আমরা প্রকৃত নির্বাচনই বুঝে থাকি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে বিতর্কের অবসান ঘটাতে হবে।

তারা নিরপেক্ষ না হলে আমরা কীভাবে প্রকৃত নির্বাচন আশা করব? নির্বাচন কমিশনকে ঘিরে বিতর্ক নিরসন না হওয়ার দায় কার? নির্বাচন কমিশনই পারে জনসাধারণের মনে আশার আলো জ্বালাতে। তা না হলে নির্বাচন ও গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ আবারও সংকটে নিপতিত হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যাবে।

আমরা গঠনমূলক রাজনীতি চাই। ব্যক্তি স্বাধীনতা চাই। ধ্বংসাত্মক রাজনীতির পরিবর্তন চাই। সরকারি দলের উচিত হবে বিরোধী দলের দাবিগুলোর প্রতি সম্মান জানানো।

আবার বিরোধী দলেরও উচিত হবে সরকারকে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন করার সুযোগ দেয়া এবং দেশ পরিচালনায় সহায়তা করা।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলীঃ-

সম্পাদকঃ এ, বি মালেক (স্বপ্নিল)
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ লতিফুল ইসলাম
উপদেষ্টাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন
আইটি উপদেষ্টাঃ মাহির শাহরিয়ার শিশির
আইটি সম্পাদকঃ আসাদ্দুজামান সাগর
প্রকাশক ও নির্বাহী পরিচালক (CEO):
ইঞ্জিনিয়ার এম, এ, মালেক (জীবন)

যোগাযোগঃ-

৮৬৮ কাজীপাড়া, মিরপুর-১০, মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ-১২১৬।
ইমেইলঃ info@dailynewsbd24.com, dailynewsbd247@gmail.com,
ওয়েবঃ www.dailynewsbd24.com
মোবাইলঃ +৮৮-০১৯৯৩৩৩৯৯৯৪-৯৯৬,
+৮৮-০১৭২১৫৬৭৭৮৯

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited