রাত ৯:০৫ | শনিবার | ২১শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং | ৮ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রাণ আপ

pran-up-add

কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ম্লান হয়|| মনিরুল ইসলাম (রয়েল)

“কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ম্লান হয়” বলে মনে করেন লেখক ও কলামিস্ট মনিরুল ইসলাম (রয়েল)।

তিনি বলেন আজ ষোল কোটি জনতার মধ্যে প্রায় ১৪ কোটিরই মুখে কোটা সংস্কারের বিষয়টি মুখরোচক হিসেবে আলোচিত ও সমালোচিত একটি অধ্যায়।ছাত্র-ছাত্রদের ন্যায্য দাবি আদায়ে ঢাকাসহ দেশের প্রায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোটা সংস্কার আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছে।

এদিকে গতকাল কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর বক্তব্যে আরও বেশি বানচাল অধিকার আদায় ছাত্র সংঘটন। আমি মনে করি ছাত্রদের এ আন্দোলন যোক্তিক দাবি একটি আন্দোলন।

স্বাধীনতার এতো যুগ পেরোবার পরও মুক্তিযোদ্ধাদের ছেলে-মেয়ে, নাতি-নাতনীদের চাকুরিতে ৩০% কোটা থাকা মেধাবীদের সাথে বিশাল বৈষম্যে এবং এর সাথে মেধাশূন্যতায় ভরপুর সরকারি চাকরিক্ষেত্র।

মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা পদ্ধতি সংস্কার করে ১০%করলে মেধাবীদের সাথে বৈষম্য করা হবে না।

বর্তমানে শিক্ষিত বেকারের সমস্যা প্রকট। কোটায় চাকরি দিলে এই সমস্যা আরও ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করবে। কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের মর্যাদা বাড়ে না বরং মর্যাদা ম্লান হয়।

তাই সংশ্লিষ্ট সবার মতামত নিয়ে অবিলম্বে কোটা পদ্ধতি সংস্কার করাই হবে সরকারের বাস্তবসম্মত কাজ। তাতে আমি মনে করি সরকারেরও লাভ ছাড়া ক্ষতি নেই। গতকাল বেশ কয়েকটি দৈনিক জাতীয় পত্রিকায় দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন লেখক ও কলামিস্ট মনিরুল ইসলাম রয়েল।

এই বিশিষ্ট গুনি লেখক বলেন, কোটা পদ্ধতি যে একবারেই বাতিল হবে তা তো শিক্ষার্থীদের দাবি নয় বরং তারা বলছে কোটা পদ্ধতি সংস্কার করা হোক।তাদের প্রতিটি দাবিই যৌক্তিক বলে কলামিস্ট মনিরুল ইসলাম মন্তব্য করেন।তিনি বলেন, এই দাবি নতুন নয়, অনেক পুরোনো অনেক আগের।

এই দাবি উঠেছে এমন জায়গা থেকে যেখান থেকে পাঠ সম্পন্ন করে শিক্ষার্থীরা একদিন জাতিকে নেতৃত্ব দেবে। কোটা সংস্কারের বিষয়টি নিয়ে যে আন্দোলন চলছে তা কিন্তু মোটেই সরকারের বিরুদ্ধে নয়।

কোটার বর্তমান অবস্থা রেখে দিলে বর্তমান সরকার যে খুব বেশি রকম লাভবান হবেন তাও কিন্তু ধরাছোঁয়ার মধ্যে নয়। বিষয়টি খুব বেশি অতিরঞ্জিত হলেএকটি ভোটও বাড়বে না বরং কমবে।

কোটা সংস্কারের বিষয়টি জেদাজেদির বিষয় নয়, যুক্তি দিয়ে আলোচনা করে মীমাংসার বিষয়। দেশের এই গুনি লেখক কোটা সংস্কার করা হোক দাবি জানিয়ে বলেন, আমাদের পুরো জাতির ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের ওপর। দেশে একটি প্রগতিশীল সমাজ বিনির্মাণে মেধার বিকল্প নেই।

দেশ কোটা পদ্ধতি নিয়ে এগুতে পারে না। সরকারের নীতিনির্ধারকরা তা মানতে চাইছেন না।দেশে বর্তমান কোটা ব্যবস্থায় সবার মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করছে, অসাম্য আর বৈষম্যের জন্ম দিচ্ছে। সংহত জাতি গঠনে এই পদ্ধতি সহায়ক নয়।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» জামায়াত-জাতীয় পার্টির ঘাঁটিতে ‘সিঁধ’ কাটছে আ’লীগ

» সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে এমসিকিউ পরীক্ষার নির্দেশিকা

» প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা প্রথম দফা ২০ এপ্রিল

» এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল ৬ মে

» প্রযোজক প্রেরণার বিরুদ্ধে জন আব্রাহামের মামলা

» নারী শিক্ষার্থীরা কোটা চায় না: প্রধানমন্ত্রী

» জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন দিয়ে কোটা বাতিল করতে পারবে

» পুলিশকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান আন্দোলনকারীরা

» সিলেট শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট হ্যাকড

» প্রধানমন্ত্রীকে ঘোষণা দেয়ার আহ্বান, অন্য কারও কথায় আন্দোলন বন্ধ নয়

» কোনো কোটা থাকবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী, শতভাগ নিয়োগ হবে মেধায়

» ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’ মহাকাশে উড়বে ৪ মে

» কোটা সংস্কারে সরকারকে অনুরোধ জানানো হয়েছে || উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান

» কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ম্লান হয়|| মনিরুল ইসলাম (রয়েল)

» বাংলাদেশে মোটরসাইকেল রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া

Biggapon

Biggapon

সদস্য মণ্ডলীঃ-

সম্পাদকঃ এ, বি মালেক (স্বপ্নিল)
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ লতিফুল ইসলাম
উপদেষ্টাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন
আইটি উপদেষ্টাঃ মাহির শাহরিয়ার শিশির
আইটি সম্পাদকঃ আসাদ্দুজামান সাগর
প্রকাশক ও নির্বাহী পরিচালক (CEO):
ইঞ্জিনিয়ার এম, এ, মালেক (জীবন)

যোগাযোগঃ-

৮৬৮ কাজীপাড়া, মিরপুর-১০, মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ-১২১৬।
ইমেইলঃ info@dailynewsbd24.com, dailynewsbd247@gmail.com,
ওয়েবঃ www.dailynewsbd24.com
মোবাইলঃ +৮৮-০১৯৯৩৩৩৯৯৯৪-৯৯৬,
+৮৮-০১৭২১৫৬৭৭৮৯

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited

,

কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ম্লান হয়|| মনিরুল ইসলাম (রয়েল)

“কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ম্লান হয়” বলে মনে করেন লেখক ও কলামিস্ট মনিরুল ইসলাম (রয়েল)।

তিনি বলেন আজ ষোল কোটি জনতার মধ্যে প্রায় ১৪ কোটিরই মুখে কোটা সংস্কারের বিষয়টি মুখরোচক হিসেবে আলোচিত ও সমালোচিত একটি অধ্যায়।ছাত্র-ছাত্রদের ন্যায্য দাবি আদায়ে ঢাকাসহ দেশের প্রায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোটা সংস্কার আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছে।

এদিকে গতকাল কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর বক্তব্যে আরও বেশি বানচাল অধিকার আদায় ছাত্র সংঘটন। আমি মনে করি ছাত্রদের এ আন্দোলন যোক্তিক দাবি একটি আন্দোলন।

স্বাধীনতার এতো যুগ পেরোবার পরও মুক্তিযোদ্ধাদের ছেলে-মেয়ে, নাতি-নাতনীদের চাকুরিতে ৩০% কোটা থাকা মেধাবীদের সাথে বিশাল বৈষম্যে এবং এর সাথে মেধাশূন্যতায় ভরপুর সরকারি চাকরিক্ষেত্র।

মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা পদ্ধতি সংস্কার করে ১০%করলে মেধাবীদের সাথে বৈষম্য করা হবে না।

বর্তমানে শিক্ষিত বেকারের সমস্যা প্রকট। কোটায় চাকরি দিলে এই সমস্যা আরও ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করবে। কোটায় চাকরি দিলে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের মর্যাদা বাড়ে না বরং মর্যাদা ম্লান হয়।

তাই সংশ্লিষ্ট সবার মতামত নিয়ে অবিলম্বে কোটা পদ্ধতি সংস্কার করাই হবে সরকারের বাস্তবসম্মত কাজ। তাতে আমি মনে করি সরকারেরও লাভ ছাড়া ক্ষতি নেই। গতকাল বেশ কয়েকটি দৈনিক জাতীয় পত্রিকায় দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন লেখক ও কলামিস্ট মনিরুল ইসলাম রয়েল।

এই বিশিষ্ট গুনি লেখক বলেন, কোটা পদ্ধতি যে একবারেই বাতিল হবে তা তো শিক্ষার্থীদের দাবি নয় বরং তারা বলছে কোটা পদ্ধতি সংস্কার করা হোক।তাদের প্রতিটি দাবিই যৌক্তিক বলে কলামিস্ট মনিরুল ইসলাম মন্তব্য করেন।তিনি বলেন, এই দাবি নতুন নয়, অনেক পুরোনো অনেক আগের।

এই দাবি উঠেছে এমন জায়গা থেকে যেখান থেকে পাঠ সম্পন্ন করে শিক্ষার্থীরা একদিন জাতিকে নেতৃত্ব দেবে। কোটা সংস্কারের বিষয়টি নিয়ে যে আন্দোলন চলছে তা কিন্তু মোটেই সরকারের বিরুদ্ধে নয়।

কোটার বর্তমান অবস্থা রেখে দিলে বর্তমান সরকার যে খুব বেশি রকম লাভবান হবেন তাও কিন্তু ধরাছোঁয়ার মধ্যে নয়। বিষয়টি খুব বেশি অতিরঞ্জিত হলেএকটি ভোটও বাড়বে না বরং কমবে।

কোটা সংস্কারের বিষয়টি জেদাজেদির বিষয় নয়, যুক্তি দিয়ে আলোচনা করে মীমাংসার বিষয়। দেশের এই গুনি লেখক কোটা সংস্কার করা হোক দাবি জানিয়ে বলেন, আমাদের পুরো জাতির ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের ওপর। দেশে একটি প্রগতিশীল সমাজ বিনির্মাণে মেধার বিকল্প নেই।

দেশ কোটা পদ্ধতি নিয়ে এগুতে পারে না। সরকারের নীতিনির্ধারকরা তা মানতে চাইছেন না।দেশে বর্তমান কোটা ব্যবস্থায় সবার মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করছে, অসাম্য আর বৈষম্যের জন্ম দিচ্ছে। সংহত জাতি গঠনে এই পদ্ধতি সহায়ক নয়।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলীঃ-

সম্পাদকঃ এ, বি মালেক (স্বপ্নিল)
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ লতিফুল ইসলাম
উপদেষ্টাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন
আইটি উপদেষ্টাঃ মাহির শাহরিয়ার শিশির
আইটি সম্পাদকঃ আসাদ্দুজামান সাগর
প্রকাশক ও নির্বাহী পরিচালক (CEO):
ইঞ্জিনিয়ার এম, এ, মালেক (জীবন)

যোগাযোগঃ-

৮৬৮ কাজীপাড়া, মিরপুর-১০, মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ-১২১৬।
ইমেইলঃ info@dailynewsbd24.com, dailynewsbd247@gmail.com,
ওয়েবঃ www.dailynewsbd24.com
মোবাইলঃ +৮৮-০১৯৯৩৩৩৯৯৯৪-৯৯৬,
+৮৮-০১৭২১৫৬৭৭৮৯

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited